নিজস্ব সংবাদদাতা- জরিমানার মুখে পড়তে হলো রাজ্য সরকারকে। রাজ্য সরকারকে ২০ লাখ টাকা জরিমানা করল ‘ভবিষ্যতের ভূত’ ছবিটি বন্ধ করার জন্য। বাক স্বাধীনতার অধিকার খর্ব করার জন্য প্রযোজক সংস্থা ও হল মালিকদের ২০ লাখ টাকা জরিমানা দেওয়ার জন্য রাজ্য সরকারকে নির্দেশ দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। শীর্ষ আদালত রায় দিয়ে জানিয়েছে, সেন্সর বোর্ডের ছাড়পত্র পেয়েছে ‘ভবিষ্যতের ভূত’। ছাড়পত্র পাওয়া ছবিকে কোনওমতেই বন্ধ করা যাবে না। ১৫ ফেব্রুয়ারি মুক্তি পায় পরিচালক অনীক দত্তের ছবি ‘ভবিষ্যতের ভূত’। ছবি মুক্তির ঠিক পরেরদিন থেকেই ছবিটি রাজ্যের সমস্ত হল থেকে তুলে নেওয়া হয়। ছবিটি প্রেক্ষাগৃহগুলি থেকে তুলে নেওয়ার কারন সম্পকে কোনও সঠিক জবাব পাওয়া যায়নি।এরপর ছবি বন্ধের বিষয়ে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয় ‘ভবিষ্যতের ভূত’-এর প্রযোজক সংস্থা।প্রযোজক সংস্থার তরফে শীর্ষ আদালতকে জানানো হয়, ছবিটি মুক্তির আগে কলকাতা পুলিসের গোয়েন্দা বিভাগের তরফে তাঁদের কাছে চিঠি পাঠানো হয়। চিঠিতে ছবিটি তাঁদের আগাম প্রদর্শনের দাবি জানানো হয়েছিল। ছবিটি রাজ্যের আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি ব্যহত করতে পারে, মানুষের ভাবাবেগে আঘাত করতে পারে বলে চিঠিতে দাবিও করা হয়েছিল। আর তারপরই মুক্তির পর কাউকে কিছু না জানিয়ে, ছবিটি রাজ্যের বেশিরভাগ হল থেকে তুলে নেওয়া হয়।

এরপরেও ১৫মার্চ, শুক্রবার অবিলম্বে ‘ভবিষ্যতের ভূত’-এর প্রদর্শন অবিলম্বে শুরু করার জন্য রাজ্য সরকারকে নির্দেশ দেয় সুপ্রিম কোর্ট। বিচারপতি ডি ওয়াই চন্দ্রচূড় ও হেমন্ত গুপ্তার বেঞ্চ স্পষ্ট জানিয়ে দেয়, কোনওভাবেই ভবিষ্যতের ভূতের প্রদর্শন বন্ধ করা যাবে না। শীর্ষ আদালতের তরফে রাজ্যের মুখ্যসচিব, স্বরাষ্ট্র সচিব ও ডিজিকে এবিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশও দেওয়া হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here