স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা- মুকুল রায় এবং এক সিপিএম নেতার বৈঠকের খবর ছড়িয়ে পড়তে উত্তপ্ত হয়ে উঠল নাগেরবাজার৷ নাগেরবাজারের এক গেস্ট হাউসের বাইরে এই বিক্ষোভ শুরু হয়৷ বিক্ষোভকারীদের অভিযোগ গাড়িতে করে প্রচুর টাকা আনা হয়েছে। দুটি গাড়িতে ভাঙচুর চলে৷পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ছুটে যায় বিশাল পুলিশবাহিনী।

পুলিশের সঙ্গে বিক্ষোভকারীদের ধস্তাধস্তিও হয়। এই ঘটনায় ৫ জনকে আটক করা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে৷পুলিশের পাশাপাশি ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়েছে কেন্দ্রীয়বাহিনী। মুকুল রায় এবং শমীক ভট্টাচার্যের গাড়ি ভাঙচুর করা হয়েছে বলে সংবাদ মাধ্যম সূত্রের খবর৷ জানা যায়, শমীক ভট্টাচার্য দলীয় বৈঠক করছিলেন৷ কিন্তু ওই বৈঠকে মুকুল রায় এবং এক সিপিএম নেতাও নাকি ছিলেন। যশোর রোডে তৃণমূল কর্মী সমর্থকেরা ক্ষোভে ফেটে পড়ে৷ তাদের অভিযোগ, গোপন কোনও আঁতাতের কারণেই বিপুলি পরিমাণ টাকা আনা হয়েছে দুটি গাড়িতে৷এরপরেই গেস্ট হাউসের সামনে ওই দুটি গাড়ি ভাঙচুর চালানো হয়। ৷ এই বিষয়ে বৈদ্যুতিন সংবাদ মাধ্যমকে ফোনে জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক বলেন, ‘মুকুল রায় সিপিএমের প্রাক্তন নেতা পল্টু দাশগুপ্ত এবং শমীক ভট্টাচার্য বৈঠক করছিলেন৷ টাকার লেনদেন করছিলেন৷তারা সিমপ্যাথি ড্র করার খেলায় নেমেছে৷ টাকার ডিল হচ্ছিল৷ ছেলেদের বলেছিল, পুলিশকে জানাও, নির্বাচন কমিশন বিষয়টি দেখবে৷ ওই বিক্ষোভে তৃণমূলের কর্মীরা নেই৷ বিজেপির কর্মীদের ডেকেই নিজেদেরই গাড়ি ভাঙচুর করিয়েছে৷ বিদ্যাসাগর কাণ্ডের পর এই সিমপ্যাথি ড্র করার খেলা চলছে৷ মুকুল রায় গল্প তৈরি করার মাস্টার৷ তিনি গল্প তৈরি করছেন৷’
গভীর রাত পর্যন্ত তীব্র উত্তেজনা রয়েছে এলাকায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here