মালদা- কোএড স্কুল।কিন্তু একসঙ্গে ক্লাস করা যাবে না ছাত্রছাত্রীদের। মালদহ জেলার হবিবপুরে গিরিজা সুন্দরী বিদ্যামন্দির স্কুলের প্রধান শিক্ষকের নয়া সিদ্ধান্ত সপ্তাহে তিন দিন ক্লাস ছাত্রদের এবং বাকি তিন দিন ছাত্রীদের।
প্রধান শিক্ষকের সিদ্ধান্ত অনুসারে সপ্তাহের সোম, বুধ এবং শুক্রবার করে পঠনপাঠন হয়কেবলমাত্র ছাত্রীদের। বাকি মঙ্গল, বৃহস্পতি এবং শনিবারে ক্লাস নেওয়া হয় ছাত্রদের। স্কুলের প্রধান শিক্ষক জগদীশ সরকার জানিয়েছেন যে স্কুলে মেয়েদের উত্ত্যক্ত করছিল ছেলেরা। যার প্রভাব পড়েছিল নিচু ক্লাস গুলোতেও। এমনকি বিদ্যালয় চত্তর প্রেমিকযুগলের আখড়া হয়ে গেছিল। সেই কারণেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ভবিষ্যতেও এই সিদ্ধান্ত কার্যকর থাকবে বলে জানিয়েছেন জগদীশবাবু।
কিন্তু সঠিক সময়ে সিলেবাস শেষ হওয়া নিয়ে উঠতে শুরু করেছে প্রশ্ন। কারণ আলাদা আলাদা ক্লাস হলে পঠনপাঠনের সময় কমে যাবে। এই জটিলতাও অচিরেই দূর করা যাবে বলে দাবি করেছেন প্রধান শিক্ষক জগদীশবাবু। তবে পড়ুয়াদের শিক্ষা দেওয়ার জন্য প্রধান শিক্ষকের বিশেষ নির্দেশিকা জারি নিয়ে শুরু হয়েছে বিতর্ক। স্কুলের অনেক অভিভাবক এই বিষয়টির বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন। রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় এই বিষয়ে বলেছেন, “এই ধরনের সিদ্ধান্ত কখনই সমর্থন করা যায় না। এই বিষয়ে আধিকারিকদের তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। দ্রুত এই সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করে নেওয়া হবে।” ওই স্কুলের প্রধান শিক্ষক এত বড় সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে শিক্ষা দফতরের সঙ্গে কোনও যোগাযোগ করেননি বলে দাবি করেছেন রাজ্যের উচ্চশিক্ষা সংসদের সভাপতি মহুয়া দাস।
যদিও পুরো স্কুলের ক্ষেত্রে এই নিয়ম কার্যকর নয়। কেবলমাত্র একাদশ এবং দ্বাদশ শ্রেণীর পড়ুয়াদের ক্ষেত্রে এই নিয়ম প্রযোজ্য।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here