নিউজ ডেস্ক- “অনুপ্রবেশকারীদের ভোটব্যাঙ্ক হিসেবে ব্যবহার করছেন মুখ্যমন্ত্রী।” বালুরঘাটে দলীয় কর্মসূচিতে গিয়ে দাবি করলেন বিজেপির সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায়।
লকেট বলেন,”অসমে ১৯ লক্ষ লোকের নাম বাদ গিয়েছে। পশ্চিমবঙ্গে সঠিকভাবে এনআরসি চালু করা হলে, এক কোটিরও বেশি মানুষের নাম বাদ যাবে।”
লকেটের অভিযোগ, সীমান্তবর্তী বিভিন্ন জেলা ও কলকাতায় বেশ কিছু এলাকায় আইনশৃঙ্খলা বলে কিছু নেই। সেখানে বিশেষ সম্প্রদায় নিজেদের মতো করে চলে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ওই এলাকাগুলোকে নিজের ভোট ব্যাঙ্ক হিসেবে ধরে রাখতে চাইছেন। কেন্দ্রীয় সরকারের নীতিগুলি এখানে লাগু হয় না। শুধু পশ্চিমবঙ্গ নয়, আগামী দিনে সারা ভারতে এনআরসি হবে বলেও দাবি করেন হুগলির সাংসদ। তাঁর কথায়,”যারা পাসপোর্ট বা বৈধ কাগজপত্র ছাড়া এদেশে বসবাস করছে, তাদেরকে বেছে বেছে খুঁজে বের করে ফেরত পাঠানো হবে।”


অন্যদিকে, এদিন এনআরসি বিরোধী পদযাত্রা করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মুখ্যমন্ত্রী বলেন,  “বাংলায় ২কোটি তো দূরের কথা, আগে ২ জনের গায়ে হাত দিয়ে দেখাও। বাংলায় এনআরসি হবে না। বাংলা কখনও মাথা নত করবে না, বাংলাকে হিংসা করে লাভ হবে না।” মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বক্তব্যের পাল্টা বিজেপির রাজ্য সভাপতি বলেন, ”উনি থাকতে এনআরসি হবে না। আমরা সেটা চাইও না। অসমে একটা পরীক্ষা করা হয়েছে, এবার বাকি দেশে করার চেষ্টা করব। প্রায় ২ কোটি বাংলাদেশি পশ্চিমবাংলায় ঢুকেছে। তারা ছড়িয়ে পড়েছে বিভিন্ন রাজ্যে।”


পাশাপাশি বিজেপি নেতা মুকুল রায় জানিয়েছেন, নাগরিকত্ব বিল পাশ হওয়ার পরে বাংলায় নাগরিকপঞ্জি চালু হবে। 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here