নিউজ ডেস্ক- ১৯৩০ সালের ২৭ ডিসেম্বর তাপমাত্রা ০ ডিগ্রি সেলসিয়াসে নেমেছিল। দিল্লিতে এখনও এটাই সর্বকালীন রেকর্ড। সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২ ডিগ্রি সেলসিয়াসে পৌঁছলেই শৈতপ্রবাহ বইবে রাজধানীতে। শনিবার এই মর্মে রাজধানীবাসীকে সতর্ক করেছে মৌসম ভবন।


হাড়-কাঁপানো ঠান্ডা এখন দিল্লিতে। রাজধানী জবুথবু না হলেও, বিগত দু-দশকের মধ্যে ডিসেম্বরে পারদ এত নীচে নামেনি। সারাদিন ঘন কুয়াশার কারণে বিমান ও রেল পরিষেবা বিঘ্নিত হয়েছে। শুধু দিল্লি বলে নয়, তীব্র ঠান্ডায় উত্তর ভারতের একাধিক অঞ্চল কাঁপছে। বিগত প্রায় ১৫ দিন ধরেই জাঁকিয়ে ঠান্ডা পড়েছে দিল্লিতে।


শনিবার সফদরজংয়ে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ১৩.৩ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেড। স্বাভাবিকের থেকে ৭ ডিগ্রি কম। দিল্লির জন্য এটা তীব্র শীতের দিন। সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৬.৪ ডিগ্রির নীচে হলেই, দিনটিকে তীব্র শীতের দিন বলা হয়ে থাকে।
শনিবার রাজধানী শহরে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ২.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। স্বাভাবিকের তুলনায় ৫ ডিগ্রি কম। সফদরজং আবহওয়া পর্যবেক্ষণ কেন্দ্র থেকে এই তাপমাত্রা ধরা পড়ে। ২০১৩ সালের ৩০ ডিসেম্বর এবং ১৯৯৬ সালের ১১ ডিসেম্বর পারদ এর থেকেও নীচে নেমেছিল। যদিও সেই হেরফের খুবই সামান্য– ২.৩ ডিগ্রি সেন্টগ্রেড।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here