নিউজ ডেস্ক – লকডাউনের ফলে ঘরমুখী লক্ষ লক্ষ পরিযায়ী শ্রমিকদের মাধ্যমে নতুন করে করোনাভাইরাস সংক্রমণ ঘটতে পারে। রবিবার এই মর্মে সংশ্লিষ্ট সব মহলকে সতর্ক করে দিল বিশ্ব ব্যাংক।বিশ্ব ব্যাংকের মতে, ভারতের বহু এলাকা বিশেষত গ্রাম আছে যেখানে এখনও করোনা থাবা বসাতে পারিনি। কিন্তু করোনার বাহক কোনও ঘরমুখী পরিযায়ী শ্রমিকের মাধ্যমে এই সমস্ত গ্রামেও মারণ ভাইরাস পৌঁছে যেতে পারে। তেমন হলে পরিস্থিতি আরও খারাপ হতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছে তারা। এই ঘটনা শুধু ভারত নয়, দক্ষিণ এশিয়ার বাকি দেশগুলির ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য বলে জানিয়েছে বিশ্ব ব্যাংক।


রবিবার প্রকাশিত বিশ্ব ব্যাংকের দ্বিবার্ষিক রিপোর্ট অনুযায়ী, দক্ষিণ এশিয়া বিশ্বের অন্যতম জনবহুল ও ঘনবসতিপূর্ণ অঞ্চল। ফলে ভারতীয় উপমহাদেশে, বিশেষ করে শহরাঞ্চলে, সংক্রমণ রোধ করা যথেষ্ট চ্যালেঞ্জের। যে কারণে সমাজের প্রান্তিক অংশ, বস্তিবাসী এবং পরিযায়ী শ্রমিকদের মধ্যে খুব সহজেই করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়তে পারে বলে সতর্ক করে দিয়েছে বিশ্ব ব্যাংক।
করোনা সংক্রমণ রুখতে ভারত, বাংলাদেশ ও পাকিস্তানে স্বল্প সময়ে নোটিশ দেশজুড়ে লকডাউন জারি করা হয়। বন্ধ হয়ে যায় অন্তর্দেশীয় পরিবহণ ব্যবস্থা। এর পরেই খাদ্যসংটের ভয়ে পরিযায়ী শ্রমিকরা বাড়িমুখো হতে শুরু করেন। যার ফলে সামাজিক দূরত্ব লঙ্ঘিত হয়। আর এই সমস্ত পরিযায়ী শ্রমিকদের মাধ্যমে গ্রামাঞ্চলে এই মারণ ভাইরাস দ্রুত সংক্রমণের আশঙ্কা থেকে যায় বলে বিশ্ব ব্যাংকের রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়েছে। ভারতের বিভিন্ন এলাকায় মারণ ভাইরাসে আক্রান্তদের তথ্য খতিয়ে দেখেi এই আশঙ্কার কথা জানিয়েছে বিশ্বব্যাঙ্ক।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here