নিউজ ডেস্ক- নভেল করোনা ভাইরাসের আক্রান্ত সন্দেহে এক রোগীর মৃত্যুকে কেন্দ্র করে কলকাতা মেডিকেল কলেজের ফের উত্তেজনা ছড়ায়। এরপরই রোগী ভর্তি বন্ধ করে দেওয়া হল কলকাতা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মেডিসিন ওয়ার্ডে, বন্ধ হতে পারে জরুরি বিভাগও। এনআরএস, আরজিকরের পর এবার কলকাতা মেডিক্যাল কলেজ। রোগী ভর্তি বন্ধ করে দেওয়া হল পুরুষ এবং মহিলা মেডিসিন ওয়ার্ডে। ভর্তি রোগীদের নমুনা পরীক্ষা ও অন্য বিল্ডিং-এ সরিয়ে নিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কর্তৃপক্ষ। বন্ধ হয়ে যেতে পারে জরুরি বিভাগও। ইতিমধ্যেই জরুরি বৈঠকে বসেছে মেডিক্যাল কলেজ কর্তৃপক্ষ।


গতকাল কলকাতা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের সুপার স্পেশালিটি ব্লকে করোনা আক্রান্ত সন্দেহে ভর্তি রোগীর মৃত্যুর পর তার রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে বলে খবর ছড়ায়। এমন সংবাদে কার্যত ভয় পেয়ে যান হাসপাতালের চিকিৎসক ও নার্সরা। এরপর মেল এবং ফিমেল মেডিসিন ওয়ার্ডে রোগীদের গ্রীন বিল্ডিং এ সরিয়ে যাওয়া নিয়েও বিতর্ক শুরু হয়েছে চিকিৎসকদের মধ্যে। সবমিলিয়ে কর্তৃপক্ষের সঙ্গে মতবিরোধ দোখা দেয় চিকিৎসকদের। গতকালও নার্সদের বিক্ষোভের মুখে পড়েন মেডিক্যালের সুপার।


এরপরেই বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে এমসিএইচ বিল্ডি- এর সেকেন্ড ফ্লোরের মেডিসিন এবং ফিমেল মেডিসিন ওয়ার্ড। পাশাপাশি বন্ধ করে দেওয়া হতে পারে ওই এমসিএস বিল্ডিংয়ের কার্ডিওলজি থেকে শুরু করে আরও দু-একটি ওয়ার্ড।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here