নিউজ ডেস্ক- লাদাখ সীমান্তে গালওয়ান ভ্যালিতে চিনই প্রথম ভারতীয় সেনার উপর হামলা চালায়। চাঞ্চল্যকর এই তথ্য সামনে নিয়ে এলো মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের একটি গোয়েন্দা রিপোর্ট৷

গত ১৫ জুন চিন সেনার একজন সিনিয়র জেনারেল গালওয়ান ভ্যালিতে ভারতীয় সেনার উপরে হামলার নির্দেশ দেন৷ শহিদ হন ২০ জন ভারতীয় জওয়ান৷


মার্কিন গোয়েন্দা রিপোর্ট বলছে, চিন সেনার ওয়েস্টার্ন থিয়েটার কম্যান্ডের প্রধান জেনারেল ঝাও জংকি লাদাখে ভারত-চিন সীমান্তে অপারেশনের জন্য সেনাকে নির্দেশ দেন৷ আসলে ঝাও অনেক দিন ধরেই দাবি করছিলেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও তার বন্ধু দেশগুলির কাছে চিন যেন কোনও ভাবেই দুর্বল প্রমাণিত না-হয়৷ এর আগে ২০১৭ সালে ডোকলামেও একই রকম হামলা চেয়েছিলেন ঝাও৷ কিন্তু সে বার হয়নি৷ লাদাখে এই হামলাটি চালিয়ে ভারতকে শিক্ষা দিতে চেয়েছিল চিন৷
মে মাস থেকে লাদাখ সীমান্তে ভারত-চিন, দুদেশের সেনাই একাধিক বার সংঘর্ষ জড়িয়েছে৷ ভারত-চিন তিক্ত সম্পর্ক চিন্তায় রাখছে বিশ্বকে৷ জুনের প্রথম সপ্তাহে ভারত-চিন উভয় পক্ষই প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা থেকে ধীরে ধীরে সেনা সরাতে আগ্রহ প্রকাশ করতে শুরু করে৷ শান্তি প্রক্রিয়া ভালোই এগোচ্ছিল৷ কিন্তু গত ১৫ জুন ভারতীয় সেনার এক অফিসার-সহ ৩ সেনা কর্তা বৈঠক করতে যান চিন সেনার সঙ্গে৷ মার্কিন গোয়েন্দা রিপোর্ট বলছে, আলোচনা তো দূর, ওই বৈঠক স্থলে কয়েক ডজন চিন সেনা কাঁটা লাগানো রড নিয়ে অপেক্ষা ছিল৷ নিরস্ত্র ভারতীয় সেনা অফিসারদের উপর অতর্কিতে হামলা চালায়৷
লাদাখের ঘটনা নিয়ে চিনের দাবির সঙ্গে মার্কিন গোয়েন্দা রিপোর্ট মিলছে না৷ মার্কিন গোয়েন্দারা স্পষ্ট জানাচ্ছেন, গালওয়ান ভ্যালির সংঘর্ষ মারাত্মক৷ ওই সংঘর্ষে কম করে ২০ জন ভারতীয় জওয়ান ও ৩৫ জন চিন সেনার মৃত্যু হয়েছে৷ দু তরফই পরস্পরের কয়েকজন সেনাকে আটক করে৷ পরে ছেড়ে দেওয়া হয়৷ মোটের উপর চিন ভারতকে তাদের শক্তি প্রদর্শন করল৷ যাতে ভারত মার্কিন বন্ধুত্ব ত্যাগ করে চিনের অর্থনীতির কাছে আত্মসমর্পণ করে৷


তবে, ৫জি পরিকাঠামো তৈরি করতে ভারত যাতে চিনা সংস্থা Huawei-এর সাহায্য না নেয়, তার জন্য ভারতকে কয়েক মাস ধরেই চাপ দিচ্ছিল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র৷ গালওয়ান ভ্যালির ঘটনার পরে ভারতে স্বতঃস্ফূর্ত ভাবেই চিনা অ্যাপ থেকে শুরু করে পণ্য, সব কিছু বর্জন শুরু হয়ে গিয়েছে৷২০ জন জওয়ান শহিদ হওয়ার পরেই ভারত জুড়ে চিন বিরোধী আন্দোলন শুরু হয়ে গিয়েছে৷ চিনা পণ্য বয়কট করা চলছে গোটা দেশে৷

ছবি – প্রতীকী (সংগৃহীত)।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here