নিউজ ডেস্ক- তৃণমূলের মহিলা পঞ্চায়েত প্রধানকে দীর্ঘক্ষণ শৌচাগারে আটকে রাখার অভিযোগ উঠল দলেরই নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে। ঘটনার জেরে উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে পশ্চিম মেদিনীপুরের সবং। দলের গোষ্ঠী কোন্দল এভাবে প্রকাশ্যে চলে আসায় অস্বস্তিতে পড়েছে স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব।
পশ্চিম মেদিনীপুরের সবং থানার ৯ নম্বর বলপাই পঞ্চায়েতের প্রধান প্রতিমা প্রামাণিক নামে ওই মহিলা। তাঁর অভিযোগ, বুধবার সাংসদ মানস ভুইঞার অনুগামী গৌর বেরার দলবল আচমকা পঞ্চায়েত অফিসে হানা দেয়। কোনও কারণ ছাড়াই প্রধান, উপ-প্রধানের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করে অভিযুক্তরা। শৌচাগারে আটকে রাখে প্রতিমাদেবীকে। দীর্ঘক্ষণ পর রেহাই পান তিনি।


পুলিশে ঘটনাটি জানিয়েও কোনও লাভ হয়নি বলেই অভিযোগ প্রধানের। প্রতিমাদেবী জানান, বুধবারই গোটা ঘটনা জানিয়ে পুলিশে অভিযোগ দায়ের করা হয়। ২৪ ঘণ্টা পেরিয়ে গেলেও কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। কাউকে গ্রেপ্তারও করা হয়নি।অভিযোগের সুরেই পঞ্চায়েত প্রধান বলেন, প্রমাণস্বরূপ সিসিটিভি ফুটেজ দেওয়া সত্ত্বেও পুলিশ নির্বিকার। জানা গিয়েছে, ইতিমধ্যেই ক্ষোভে অফিসে তালা ঝুলিয়েছেন প্রধান। অভিযুক্তদের শাস্তি দেওয়ার পরই তা খোলা হবে বলে সাফ জানিয়েছেন তিনি।তবে প্রধানের অভিযোগ প্রসঙ্গে মুখ খোলেনি পুলিশ। একাধিকবার চেষ্টা করেও যোগাযোগ করা যায়নি সাংসদ মানস ভুইঞার সঙ্গে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here