মালদা- রাতে ডিউটি করে বাড়ি যাওয়ার পথে বিএসএফের হাতে আক্রান্ত হলেন ৪ সিভিক ভলেন্টিয়ার সহ এক বিজেপির নেতা তথা পঞ্চায়েত সদস্য ।এই ঘটনায় তীব্র উত্তেজনা ছড়ায় মালদার হবিবপুর থানার ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তবর্তী কেদাড়িপাড়া বিওপির অন্তর্গত বিজলএলাকায়। এলাকায় ছুটে যায় পুলিশ। গুরুতর আহত ৪ জন সিভিক ভলেন্টিয়ার সহ ওই পঞ্চায়েত সদস্য বুলবুলচন্ডী প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে চিকিৎসাধীন। এই বিষয়ে হবিপুর থানার পুলিশ অভিযুক্ত বিএসএফ কর্মীদের নামে এফআইআর করেছেন।


পুলিশ সূত্রে জানা যায় হবিবপুর থানা কেন্দপুকুর এলাকায় দুইজন সিভিক ভলেন্টিয়ার ডিউটি করে রাতে বাড়ি যাচ্ছিলেন। তাদের বাড়ি ডালনা এলাকায়। সীমান্ত এলাকা দিয়ে বাড়ি যাওয়ার সময় কর্তব্যরত বিএসএফ জওয়ান সহ কেদাড়িপাড়া বিওপির বি এস এফ আধিকারিক ও জাওয়ানরি তাদের পথ আটকায় এবং তাদেরকে মারধোর করে লাঠি দিয়ে মারধর করে বলে অভিযোগ। খবর পেয়ে আরো দুজন সিভিক ভলেন্টিয়ার ওই পথ দিয়ে যাচ্ছিল তাদেরকেও মারধর করে। শুধু তাই নয় বৈদ্যপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের বিজেপির পঞ্চায়েত সদস্য সন্তোষ সরেনকেও মারধর করা হয় বলে বিএসএফ দের বিরুদ্ধে অভিযোগ। তারা সকলেই মদ্যপ অবস্থায় ছিল। তড়িঘড়ি অবস্থায় ছুটে যায় হবিপুর থানার আইসি পূর্ণেন্দু মুখার্জি। বিজলী এলাকা থেকে আহত অবস্থায় তাদেরকে উদ্ধার করে বুলবুলচন্ডী প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে আনা হয়।
বর্তমানে হবিপুর থানার ভারত বাংলাদেশ সীমান্তবর্তী এলাকায় ১৫৯ কোম্পানির বিএসএফ দায়িত্বে রয়েছেন।
জেলা বিজেপির সহ-সভাপতি অজয়গঙ্গুলি বলেন, বিজেপির পঞ্চায়েত মেম্বার কে মারধর করেছে অনভিপ্রেত ঘটনা। আমরা চাই এর সঠিক তদন্ত হোক।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here