মালদা- তৃণমূল নেত্রী তথা প্রাক্তন মন্ত্রী সাবিত্রী মিত্রের বাড়িতে হামলা, মেয়ের শ্লীলতাহানি। অভিযোগ তৃণমূলেরই বেশ কিছু কর্মীর দিকে।

যারা আবার জেলা তৃণমূল নেতা তথা তৃণমূলের কয়েকটি ব্লকের কোঅর্ডিনেটর অম্লান ভাদুড়ির অনুগত বলেই জানা গিয়েছে। সাবিত্রী মিত্রের সঙ্গে অম্লান ভাদুড়ির একটা রাজনৈতিক বিরোধিতা যে বহুদিন ধরেই চলছে তা সর্বজনবিদীত। তবে এক্ষেত্রে সেই বিরোধিতা নাকি অন্য কোনও কারণ তা স্পষ্ট নয় ।
ইংরেজ বাজার থানায় অভিযোগ করেছেন সাবিত্রী মিত্রের মেয়ে সূচনা মিত্র(সরকার)। তাঁর অভিযোগ, গত ১৪ অক্টোবর রাত সারে এগারোটা নাগাদ বেশ কিছু যুবক হামলা চালায় সাবিত্রী মিত্রের সদরঘাট এলাকার বাড়িতে।  আগ্নেয়াস্ত্র দেখিয়ে সাবিত্রী মিত্রের মেয়ে সূচনা মিত্রকে মাটিতে ফেলে শ্লীলতাহানি করে বলে অভিযোগ। তাঁর কাছে বার বার জিজ্ঞাসা করা হয়,সাবিত্রী মিত্র কোথায়। তাঁর কাকা সেই সময় বাধা দিতে গেলে তাঁকেও মারধর করা হয় বলে অভিযোগ। তিনিও আলদা করে সেই যুবকদের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন।


ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। জানা গিয়েছে, সদরঘাট এলাকার একটি সার্বজনীন দুর্গাপুজোকে কেন্দ্র করে ঘটনার সূূূত্রপাত। যে পুজো অম্লান ভাদুড়ির পুজো বলেই পরিচিত। গতবছর থেকে এই পুজো বন্ধ। এই বছরেও পুজো হওয়ার সম্ভাবনা বা প্রস্তুতি কোনোটাই নেই। তবুও মুখ্যমন্ত্রী ৫০০০০ টাকা পুজো কমিটিকে দিয়েছেন বলেই জানা গিয়েছে। অম্লান ভাদুড়ি নিজেই উদ্যোগ নিয়ে সেই টাকার ব্যবস্থা করেন। তবুও পুজো কেন হচ্ছে না এই নিয়ে প্রশ্ন ওঠে। বিবাদ শুরু হয়। একইসাথে সাবিত্রী মিত্রও এই বিষয়ে প্রশ্ন তোলেন বলে জানা যায়। এরপরেই বিষয়টি সংঘাতের দিকে এগিয়ে যায়। তবে এর পেছনে আরও অন্য কারণ রয়েছে কিনা তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ। ইতিমধ্যেই এই ঘটনায় তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে মালদায়।  

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here