মালদা- মালদা জেলা পরিষদ হাতছাড়া হতে পারে তৃণমূলের। এই আশঙ্কায় তড়িঘড়ি বৈঠক ডাকলেন মালদা জেলা তৃণমূল সভানেত্রী মৌসম বেনজির নূর। জেলা তৃণমূলের অনেক নেতাই বিজেপির দিকে পা বাড়িয়েছেন বলে আশঙ্কা খোদ মালদা জেলা তৃণমূল নেতৃত্বের। যদিও প্রকাশ্যে এই বিষয়ে তাঁরা কেউ বিশেষ মুখ খোলেন নি।


দব থেকে বেশি উদবেগের মানিকচকের নেতা তথা মালদা জেলা পরিষদের সভাধিপতি গৌরচন্দ্র মন্ডল এবং তাঁর অনুগামীদের নিয়ে। শুভেন্দু অধিকারীর বিজেপিতে যোগদান করার আগে তাঁর সঙ্গে দেখা করেন গৌড়চন্দ্র মন্ডল। খবর ছিল তাঁর সঙ্গে ছিলেন মালদা জেলা পরিষদের ১৭ জন তৃণমূল সদস্য,কর্মাধ্যক্ষ। এরপরে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশে এই বিষয় নিয়ে তাঁর সঙ্গে বৈঠক করেন মৌসম বেনজির নূর। বৈঠকের পরে তিনি জানান, তিনি তৃণমূলেই আছেন। যদিও পরবর্তীতে তাঁর এবং তাঁর অনুগামীদের আচরণ যথেষ্টই সন্দেহে রেখেছে তৃণমূল নেতৃত্বকে। তাঁর অনুগামী কয়েকজন জেলা পরিষদের সদস্য তাঁদের বাড়ি থেকে,নিজস্ব অফিস থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবি, দলীয় পোস্টার,ফেস্টুন সরিয়ে ফেলেছেন। গ্রামের তথা এলাকার মানুষদের কাছেও অন্যরকম বার্তা দিচ্ছেন বলেও শোনা যাচ্ছে। যা রীতিমতো চিন্তায় ফেলেছে তৃণমূল নেতৃত্বকে। আবার এরমধ্যেই এই সপ্তাহের মধ্যেই মালদার মানিকচকেই জনসভা করতে আসছেন শুভেন্দু অধিকারী। যে জনসভায় মালদা জেলার প্রথম সারির বেশ কয়েকজন তৃণমূল নেতা নেত্রী বিজেপিতে যোগদান করবেন বলে খবর।
মালদা জেলা পরিষদ তৃণমূলের দখল করার ক্ষেত্রে শুভেন্দু অধিকারীর বড় ভূমিকা ছিল। আর সেই একই কায়দা এবারেও তিনি ব্যবহার করে মালদা জেলা পরিষদকে তৃণমূলের হাত ছাড়া করাতে পারেন, এই আশঙ্কাই করছে তৃণমূল নেতৃত্ব। আর সেই কারণেই মালদা জেলার মধ্যে মানিকচকের দিকেই নজর রয়েছে শুভেন্দু অধিকারীর।
অন্যদিকে, প্রাক্তন মন্ত্রী সাবিত্রী মিত্রের সঙ্গে গৌড়চন্দ্র মন্ডলের অন্তর্দন্দ্ব চলছে। মানিকচকে তৃণমূলের এই গোষ্ঠী কোন্দল বিজেপিকে নিজেদের মাটি শক্ত করতে আরও সুবিধে করে দিয়েছে। এসব পর্যালোচনার পরেই আজ বিকেলের পরে তৃণমূল কার্যালয়ে বৈঠক করেন মৌসম বেনজির নূর। তবে সেখানে উপস্থিত ছিলেন গৌড়চন্দ্র মন্ডল। উপস্থিত ছিলেন মানিকচকের প্রাক্তন বিধায়ক ও প্রাক্তন মন্ত্রী সাবিত্রী মিত্রও। যদিও চোখে পড়ার মতোই অনেক দেরি করে এসেছিলেন দুজনে। গৌড়চন্দ্র মন্ডল কিছু না বলতে চাইলেও সাবিত্রী মিত্রের কথায়, শুভেন্দু অধিকারী চলে গেছেন, এবার মালদা জেলা থেকে যাদের যাওয়ার তাঁরাতো যাবেনই।তাঁদেরকে তো আটকানো যাবে না। তবে  মৌসম বেনজির নূরের দাবি, দলে মতানৈক্য নেই, সংগঠন মজবুত আছে । কেউ দল ত্যাগ করছেন না।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here